গৌরীপুরে কলেজ ছাত্রকে ছুরিকাঘাতে হত্যা: কয়েকটি দোকানে আগুন

প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২২ , ৬:২৪ অপরাহ্ণ

ময়মনসিংহ ব্যুরো, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ময়মনসিংহের গৌরীপুরে বাকবিতণ্ডার জেরে জহিরুল ইসলাম মিঠু (২৪) নামে এক কলেজ ছাত্রকে ছুরিকাঘাতে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার পর পরই বাজারে বেশ কয়েকটি দোকানে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষুব্ধ জনতা। পরে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে গেলে তাদের ওপরও হামলা চালানো হয়। এতে ফায়ার সার্ভিসের চার সদস্য আহত হন। মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) রাতে গৌরীপুর পৌর শহরের পাট বাজার মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত মিঠু গৗরীপুর উপজেলার বোকাইনগর ইউনিয়নের চরপাড়া গ্রামের মোখলেছুর রহমানের ছেলে। তিনি গৌরীপুর সরকারি কলেজের অনার্সের শিক্ষার্থী ছিলেন। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, গৌরীপুর পৌর শহরের পাট বাজারের টিপু সুলতান জুয়েলার্সে স্বর্ণ বিক্রি করতে যান এলবার্ট সেন্টু। স্বর্ণ মাপ দেওয়ার পর দাম নিয়ে টিপুর সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় সেন্টুর। একপর্যায়ে সেন্টু দোকান থেকে বের হয়ে যান। পরে সেন্টু তার বড় ভাই ডেবিট রকিকে নিয়ে আবারও দোকানে আসেন। এসময় দুই পক্ষের মধ্যে আবারও কথা কাটাকাটি হয়। মিঠু তাদের ঝগড়া থামাতে গেলে রকি তাকে ছুরিকাঘাত করেন। পরে স্থানীয়রা মিঠুকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে, মিঠুর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা বিক্ষোভ মিছিল করে পৗর শহরের মধ্যবাজারে কয়েকটি দোকানে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে গেলে তাদের ওপরও হামলা চালানো হয়। এসময় ফায়ার সার্ভিসের চার সদস্য আহত হন। জেলা ফায়ার সার্ভিসের ডিউটি অফিসার মোস্তাকিম জানান, দোকানে আগুন দেওয়ার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গেলেই পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের ওপর হামলা চালায় স্থানীয়রা। আহত ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। গৌরীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত)খান আব্দুল হালিম সিদ্দিকী বলেন, ‘ হত্যাকাণ্ড ও আগুন লাগার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ ঘটনাস্থলে যেতেই স্থানীয়রা হামলা চালায়। এ সময় তারা ফায়ার সার্ভিসের একটি গাড়ি ভাঙচুর করে। হামলায় পুলিশের দুই থেকে তিনজন সদস্য ও ফায়ার সার্ভিসের কয়েকজন আহত হয়েছেন। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।’