টিউমারের চিকিৎসা করতেন এসিড প্রয়োগে

প্রকাশিত : অক্টোবর ১৪, ২০২২ , ১১:১৯ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিনিধি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: চিকিৎসা ব্যবস্থায় নেই কোন প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা। দেশের বা বিদেশের স্বীকৃত কোন মেডিক্যাল কলেজ হতে চিকিৎসা বিষয়ে অর্জন করেননি কোন ডিগ্রী। চিকিৎসা শাস্ত্রের কেন জ্ঞান না থাকলেও গ্রামে বিভিন্ন জটিল রোগের চিকিৎসা করতেন। এভাবেই গ্রামের অসহায় দরিদ্র খেটে-খাওয়া মানুষের কাছ থেকে হাতিয়ে নিতেন মোটা অংকের টাকা। এমনকি টিউমারের চিকিৎসা করতেন এসিড প্রয়োগ করে। চাঁপাইনবাবগঞ্জে এমনই এক ভুয়া ডাক্তার ও তার সহযোগীকে আটক করেছে র‍্যাব। বৃহস্পতিবার (১৩ অক্টোবর) দুপুর দেড়টার দিকে শিবগঞ্জ উপজেলার ওমরপুর খোঁচপাড়া গ্রামের আদর্শ চিকিৎসালয় হতে তাদেরকে আটক করা হয়েছে। শুক্রবার (১৪ অক্টোবর) রাত ১২টার দিকে র‍্যাব-৫, সিপিসি-১ চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য নিশ্চিত করা হয়। আটককৃতরা হলেন, শিবগঞ্জ উপজেলার ওমরপুর খোঁচপাড়া গ্রামের শফিকুল ইসলাম ওরফে সুফিয়ানের ছেলে ভুয়া ডাক্তার মো. মাসুম আলী (৩২) ও ডাক্তারের সহযোগী শিবগঞ্জ উপজেলার শ্যামপুর টিকোশ গ্রামের একরামুল হকের ছেলে মো. আব্দুল মতিন (২০)। ওমরপুর খোঁচপাড়া গ্রামস্থ ভুয়া ডাক্তার মাসুম আলীর চেম্বার আদর্শ চিকিৎসালয় হতে তাদেরকে আটক করা হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে র‍্যাব জানায়, দীর্ঘদিন ধরে এমন ভুল চিকিৎসা দিয়ে আসছে মাসুম আলী ও তার সহযোগী। জানা যায়, সম্প্রতি স্থানীয় এক মহিলার মাথায় টিউমার অপারেশন করতে ভুয়া ডাক্তার মাসুম আলীর কাছে যায়। টিউমার অপারেশন না করে চিকিৎসার অংশ হিসেবে সেখানে এসিড প্রয়োগ করলে রোগীর অবস্থা আশঙ্কাজনক হয়। এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এনিয়ে র‌্যাব সরেজমিনে তদন্ত-কালে বিষয়টির সত্যতা পায়। পরে ভুয়া ডাক্তার ও তার সহযোগীকে আটক করতে অভিযান শুরু করে। র‍্যাব আরও জানায়, দীর্ঘদিন ধরে গোয়েন্দা নজরদারিতে রাখার পর তাদেরকে আটক করা হয়েছে। অভিযানে নেতৃত্ব দেন, কোম্পানি অধিনায়ক লে. কমান্ডার রুহ-ফি-তাহমিন তৌকির এবং কোম্পানি উপ-অধিনায়ক সহকারী পুলিশ সুপার মো. আমিনুল ইসলাম। এসময় তাদের কাছ থেকে দুইটি প্রেসক্রিপশন প্যাড, এক সেট এনালগ বিপি মেশিন, একটি টুল বক্স, ১১টি কাঁচি ও একটি ভুয়া প্রেসক্রিপশন উদ্ধার করেছে র‍্যাব। আটককৃত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এছাড়াও র‌্যাব নিয়মিত জঙ্গি, সন্ত্রাসী, সংঘবদ্ধ অপরাধী, অস্ত্রধারী অপরাধী, মাদক, ভেজাল পণ্য, ছিনতাইকারীসহ হেরোইনের বিরুদ্ধে অভিযান জোরদার করেছে বলে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।