সংস্কৃতি কর্মীদের প্রতিবাদী কণ্ঠ রুদ্ধ করতে রতন সিদ্দিকীর ওপর হামলা: ওয়ার্কার্স পার্টি

প্রকাশিত : জুলাই ২, ২০২২ , ৪:৫৮ অপরাহ্ণ

ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি কমরেড রাশেদ খান মেনন এমপি ও সাধারণ সম্পাদক কমরেড ফজলে হোসেন বাদশা এমপি আজ এক বিবৃতিতে সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও সাবেক শিক্ষক রতন সিদ্দিকী ও তার স্ত্রীকে লাঞ্ছিত করার উদ্দেশ্যে তার উত্তরার বাসায় পরিকল্পিত হামলায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন যে সম্প্রতি শিক্ষক হৃদয় চন্দ্র মন্ডল, অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসকে লাঞ্ছিত করা ও তাদেরকে গ্রেফতার, কলেজ শিক্ষক উৎপলকে হত্যাসহ শিক্ষাঙ্গনে ধর্মের নামে সংখ্যালঘু শিক্ষকদের টার্গেট করে যে ঘটনাবলী ঘটানো হয়েছে এটা তারই অংশ। দেশের সাংস্কৃতিক কর্মীরা এ ধরণের সাম্প্রদায়িক হত্যা হামলা প্রচারণার বিরুদ্ধে যে প্রতিবাদ করছে, জনমত সৃষ্টি করছে, প্রতিরোধের প্রস্তুতি নিচ্ছে তাকে অংকুরে ধ্বংস করতেই সংস্কৃতি কর্মীদের একটা বার্তা দিতে রতন সিদ্দিকীর বাড়ীতে এভাবে হামলা করা হল। বাড়ীর সামনে রাখা মোটরসাইকেল সরাতে ‘হর্ন’ দেয়া বা সেটাকে সরিয়ে নেবার চেষ্টা করাকে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তুলে যেভাবে মুসল্লিদের উত্তেজিত করার চেষ্টা হয়েছে এবং সংগঠিত একটি গ্রুপ দলবদ্ধভাবে তার বাসার কলাপসিবল দরজা ভাঙ্গার চেষ্টা নিয়েছে তাতে এর পিছনের পরিকল্পনা বুঝতে অসুবিধা হয় না। এই ঘটনার পরপরই জামাত-শিবিরের সামাজিক প্রচার মাধ্যম ‘বাঁশের কেল্লায়’ প্রচারিত অভিযোগ তার আরও বড় প্রমাণ। দুর্ভাগ্যজনক দীর্ঘদিন ধরে বার বার দাবি করা সত্ত্বেও ‘বাঁশের কেল্লা’ ও সমজাতীয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বন্ধ করার দাবী করা হলেও সরকার এ ব্যাপারে নির্বিকার। ওয়ার্কার্স পার্টি মনে করে সাম্প্রতিক ঘটনাবলী কেবল শিক্ষক-শিক্ষার্থীর সম্পর্ক বা সমাজে অ-সহিষ্ণুতা বিস্তারের কারণে নয়, বরং দেশে একটি সাম্প্রদায়িক পরিস্থিতি সৃষ্টি করার লক্ষ্য নিয়ে সংঘটিত করা হচ্ছে। ওয়ার্কার্স পার্টি নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে রতন সিদ্দিকীর বাড়ীতে হামলাকারীদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেয়া ও সাম্প্রদায়িক প্রচারণা এবং এক্ষেত্রে ধর্মকে ব্যবহারের বিরুদ্ধে সংবিধান ও আইনসম্মত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের কাছে জোর দাবি জানিয়েছেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তির।