এমপি শিবলী সাদিকের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের নিন্দা

প্রকাশিত : আগস্ট ২, ২০২২ , ৮:২৩ অপরাহ্ণ

মোঃ জাহিনুর ইসলাম, বিরামপুর প্রতিনিধি, দিনাজপুর, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: দিনাজপুর-৬ আসেনের এমপি শিবলী সাদিকের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন এমপি মহোদয়ের উপদেষ্টা আজিজুল হক। তার সাথে সহমত প্রকাশ করেছেন বিরামপুর প্রেসক্লাবের সদস্যরা। মঙ্গলবার দুপুরে বিরামপুর প্রেসক্লাবে আয়োজিত সমাবেশে প্রেসক্লাব সভাপতি মোরশেদ মানিকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান এর সঞ্চালনায় এমপি শিবলী সাদিককে নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীদের প্রতি সাংবাদিক মহল নিন্দা জ্ঞাপন করেন। সাংবাদিকরা বলেন, সমাজের চোখে হেয় প্রতিপন্ন করার নীল নকশায় মেতে উঠেছে দিনাজপুর জেলার রাজনৈতিক অঙ্গনের একটি অংশ। সাংবাদিকবান্ধব এমপি শিবলী সাদিককে সামাজিকভাবে হেয় করতে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা। -৬ আসনের আদিবাসী জনগোষ্ঠীর ভাগ্য উন্নয়নে সাবেক এমপি মোস্তাফিজুর রহমান এবং তাঁর ছেলে বর্তমান এমপি শিবলী সাদিক ছাড়া কেউ এগিয়ে আসেনি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সার্বিক সহযোগিতায় এ আসনের আদিবাসী জনগোষ্ঠী অধ্যুষিত এলাকায় রাস্তাঘাট বিদ্যুত, স্যানিটেশন ব্যবস্থাসহ জীবনমান উন্নয়নে এমপি শিবলী সাদিক নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। এর ধারাবাহিকতায় বিরামপুর উপজেলার ৩ নং খাঁনপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এমপি শিবলী সাদিকের সাংগঠনিক দক্ষতায় নৌকা প্রতিকে আদিবাসী জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধি চিত্তরঞ্জন পাহান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। যা এ অঞ্চলে আদিবাসী জনগোষ্ঠীর মধ্যে প্রথম। বর্তমানে এমপি শিবলী সাদিকের ব্যক্তিগত অর্থায়নে দিনাজপুর-৬ আসনের শত শত আদিবাসী শিক্ষার্থী লেখা পড়া করছে। এমপি শিবলী সাদিক এবং তাঁর পরিবার আওয়ামী লীগ এবং আদিবাসী জনগোষ্ঠীর আপনজন। সাংবাদিকরা আরও বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন এবং জেলা আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে সাধারন সম্পাদক প্রার্থী ঘোষণা দেওয়ায় পরিকল্পিতভাবে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা আদিবাসীকে দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করায়। সাংবাদিকরা বলেন, গত শনিবারে ছয়জন আদিবাসী তাদের জমি দখলের অভিযোগ এনে যে সংবাদ সম্মেলন করেছে সেখানে জমির দাগ, খতিয়ান, মৌজা কিছুই উল্লেখ নেই। কারো জমি নিজ দখলে থাকলে তার কাছে সেই জমির দলিল, পর্চা, খাজনা খারিজ থাকবে। কিন্তু সংবাদ সম্মেলনে সে সবের কোন দালিলিক তথ্য উপস্থাপন করা হয়নি। মিথ্যা সংবাদ সম্মেলনে স্বপ্ন-পূরীর নামে ৭৭ দশমিক ৬১ একর জমি জবর দখলের অভিযোগ করা হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে এখন পর্যন্ত স্বপ্ন-পূরীর মোট জমির পরিমাণ ৫৬ একর। এছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে দেলোয়ার হোসেনের অত্যাচারে শত শত আধিবাসী জনগোষ্ঠী এলাকা-ছাড়া ও ভারতে চলে যাওয়ার যে অভিযোগ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও ভিত্তিহীন। আদৌ আফতাবগঞ্জ এলাকা থেকে একজন আদিবাসী এলাকা-ছাড়া বা ভারতে যায়নি। সাংবাদিক সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন সহসভাপতি জালাল উদ্দিন রুমী, মোঃ ফরিদ হোসেন সিনিয়র সাংবাদিক ডাঃ নূরুল হক, মোবারক আলী আবু তাহের, রিপনমানিক চৌধুরী, সদস্য মাহমুদুল হক মানিক, এএসএম আলমগীর, জাহিনুর ইসলাম, এনআই তানিম, জাকিরুল ইসলাম প্রমুখ।