পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় বিএনপি ও ছাত্রলীগের সংঘর্ষে ১১ জন আহত

প্রকাশিত : আগস্ট ৭, ২০২২ , ৯:৪০ অপরাহ্ণ

ডিজার হোসেন বাদশা, পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন:পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় বিএনপি ও ছাত্রলীগের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের ১১ জনকর্মী আহত হয়েছে। রবিবার (৭ আগস্ট) বিকেলে পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার পশু হাসপাতালের সামনে সড়কে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এদিকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে উপজেলা শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। সূত্রে জানা যায়, জ্বালানী তেলসহ নিত্য পণ্যের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে বোদা পৌরসভা বিএনপি এক বিক্ষোভ মিছিল বের করে। অপরদিকে উপজেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি একটি মিছিল বের করে। উভয় পক্ষের মিছিল পশু হাসপাতালের সামনে মুখোমুখি হলে ছাত্রলীগ কর্মীদের সাথে তাদের বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। দু’পক্ষই একে অপরের দিকে লাঠি সোটা ও ইট পাটকেল নিয়ে আক্রমণ করলে উভয় পক্ষের ১১ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে একজনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে ঠাকুরগাঁও হাসপাতালে স্থানান্তরকরণ হয়। বাকিদের বোদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। সংঘর্ষের পর পুরো পৌরসভা এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। এবং শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশের সদস্যরা সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আনজাম পিয়াল জানান, আমরা শান্তিপূর্ণ ভাবে মিছিল নিয়ে বাসষ্ট্যান্ডে দিকে গেলে আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নামে বাজে শ্লোগান দিলে আমরা এতে প্রতিবাদ করলে আমাদের উপর চড়াও হয়। বোদা পৌর বিএনপির সদস্য সচিব দিলরেজা আফরোজ চিন্ময় বলেন, তেলের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে একটি মিছিল বের করা হয় বিএনপির পক্ষ থেকে। সেই মিছিলে কোন কারণ ছাড়াই ছাত্রলীগ কর্মীরা হামলা চালায়। কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই সংঘর্ষ বাধে। এদিকে বোদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুজয় কুমার রায় বলেন, বর্তমানে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশ সদস্যরা সতর্ক অবস্থায় আছে। এদিকে উভয় পক্ষের আহতরা চিকিৎসাধীন রয়েছে। এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে কোন পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ আসেনি।