নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি ইউনিয়ন ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ৬, ২০২২ , ১০:৪৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিনিধি, নোয়াখালী, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের চরপার্বতী ইউনিয়নের ৫নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন রাহাতকে (২৩) সদ্য ঘোষিত চরপার্বতী ইউনিয়ন ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম-আহ্বায়ক করা হয়েছে। এ ঘটনায় ত্যাগী ইউনিয়ন ছাত্রদল কর্মীদের মধ্যে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে। ছাত্রদল ও ছাত্রলীগ সূত্রে জানা গেছে, ৮ দিন আগে গত ২৯ নভেম্বর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক এমরান হোসেন সাগর ও সদস্য সচিব নুর উদ্দিন রুবেল ১১ সদস্য বিশিষ্ট চরপার্বতী ইউনিয়ন ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দেন। সোমবার ৫ ডিসেম্বর) উপজেলা ছাত্রদল এই কমিটি প্রকাশ করে। ওই কমিটির একজন আহ্বায়ক, চারজন যুগ্ম আহ্বায়ক, একজন সদস্যসচিব এবং বাকি সবাই সদস্য। ঘোষিত ওই কমিটির ১ নম্বর যুগ্ম আহ্বায়ক হিসেবে রয়েছে দেলোয়ার হোসেন রাহাদের নাম। অপর দিকে ২০১৭ সালে চরপার্বতী ইউনিয়নের ৫নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের ২১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি অনুমোদন করা হয়। ঘোষিত ওই কমিটির সভাপতি করা হয় দেলোয়ার হোসেন রাহাদকে সাধারণ সম্পাদক করা হয় খায়রুল ইসলাম পিয়াসকে। দলীয় প্যাডে স্বাক্ষর দিয়ে এ কমিটি অনুমোদন দিয়েছেন তৎকালীন চরপার্বতী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মোতাহের হোসেন বাদল ও সাধারণ সম্পাদক আরাফাত হোসেন পিয়াস। এ বিষয়ে জানতে চাইলে দেলোয়ার হোসেন রাহাদ বলেন, ২০১৮ সালে তিনি এসএসসি পাস করে সরকারি মুজিব কলেজে ভর্তি হই। তখন আমাদের এলাকার আওয়ামী লীগের নেতারা আমাকে ছাত্রলীগ করতে বাধ্য করে। আমাকে বলা হয় কলেজে পড়ালেখা করতে হলে এলাকায় ছাত্রলীগ করতে হবে। একপর্যায়ে আমাকে চরপাবর্তী ৫নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি করা হয়। এজন্য আমি চট্রগ্রামে আমার এক আত্মীয়ের বাসায় থাকতাম বেশি। অপর এক প্রশ্নের জবাবে রাহাদ বলেন, আমি মনে প্রাণে ছাত্রদল করি। এখনও আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আছে আমি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ছাত্রদলের কমিটিতে এসেছি। পদ বঞ্চিত নেতারা আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। চরপার্বতী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোতাহের হোসেন বাদল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ২০১৭ সালে রাহাদকে চরপার্বতী ইউনিয়নের ৫নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। এরপর আর কোন ওয়ার্ডে কমিটি হয়নি। সে হাইস্কুল থেকেই ছাত্রলীগ করত। দীর্ঘ দিন আমি দায়িত্বে নেই। পরিচর্যার অভাবে অনেক লোক নষ্ট হয়ে গেছে। আমি দায়িত্ব থেকে চলে আসার পর যারা দায়িত্বে আসে তারা ধরে রাখতে পারে নাই। আমি গাছ রোপণ করেছি এটাতো আমার অপরাধ নয়। এ বিষয়ে জানতে সদ্য ঘোষিত চরপার্বতী ইউনিয়ন ছাত্রদলের আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেন হৃদয়ের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। নোয়াখালী জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আজগর উদ্দিন দুখু বলেন,ছাত্রদল করার যে কারো অধিকার আছে। সে হয়তো এক সময় ছাত্রলীগ করেছে। ছাত্রদলের সঙ্গে হেঁটে সে হয়তো দেখেছে ছাত্রদলের আদর্শ, উদ্দেশ তার কাছে ভালো লাগায় সে ছাত্রদলে এসেছে। সে যেহেতু মনে প্রাণে ছাত্রদল করে, পদ সে পেতেই পারে স্বাভাবিক। তারপরও অভিযোগ ওঠায় বিষয়টি আমি খতিয়ে দেখব।