বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের ঝিনাইদহ কমিটির দ্বিধাদ্বন্দ্বের সমাধান

প্রকাশিত : জানুয়ারি ১১, ২০২৩ , ৮:৩৫ অপরাহ্ণ

হেলালী ফেরদৌসী, নিজস্ব প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের ঝিনাইদহ জেলা কমিটির নামে একাধিক কমিটি আত্মপ্রকাশ করায় সাধারণ মানুষের মধ্যে কিছুটা দ্বিধাদ্বন্দ্ব দেখা দিলে সৈনিক লীগ সদস্যদের নাম ও পরিচয় সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা দিয়েছেন আওয়ামী যুবলীগ ঝিনাইদহ জেলা কমিটির আহবায়ক আশফাক মাহমুদ জন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং ঝিনাইদহ পৌরসভার সাবেক মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু এবং দলের জেলা কমিটির সভাপতি সংসদ সদস্য আব্দুল হাই। সংগঠনের সভাপতি সৈয়দ আল ইমরান এবং সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান রানা বেশ কয়েকবছর ধরে বিজয়দিবস, স্বাধীনতা দিবস, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস, জাতীয় শোক-দিবস, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শেখ কামাল ও শেখ রাসেলের জন্মদিবসসহ বিভিন্ন জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক দিবস পালন এবং করোনাভাইরাস মহামারির মত অতিমারি ও প্রাকৃতিক দুর্যোগে সাধারণ মানুষের পাশে অবস্থান করে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করলেও অতি সম্প্রতি বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের ঝিনাইদহ জেলা কমিটির নামে আরেকটি কমিটির জানান দিয়েছেন ফিরোজ আলী বিশ্বাস নামে এক ব্যক্তি। গত ৬ জানুয়ারি ঝিনাইদহ সদর উপজেলার একটি গ্রামে কোন রেজিস্টার্ড চিকিৎসক ছাড়াই তিনি একটি মেডিকেল ক্যাম্প পরিচালনা করেছেন বলে সবার নজরে আসার চেষ্টা করলে তা বিভ্রান্তি ছড়ায়। ফিরোজ আলী বিশ্বাসকে ২০১৯ সালের ১৭ নভেম্বর সংগঠনের ৩১ সদস্যবিশিষ্ট ঝিনাইদহ জেলা কমিটির আহবায়ক এবং ২জনকে যুগ্ম আহবায়ক করে ৩ মাসের কর্মকাণ্ড চালানোর অনুমোদন দেন কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির শিরীন গ্রুপের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। এর প্রতিবাদে বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের ঝিনাইদহ জেলা কমিটির সভাপতি সৈয়দ আল ইমরান এবং সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান রানা ২০২১ সালের ২২ আগস্ট বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের সাথে সংশ্লিষ্ট জামায়াত নেতাকে ওই কমিটির সদর উপজেলা আহবায়ক মনোনীত করায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনসমূহের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হচ্ছে এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি অবিচার করা হচ্ছে উল্লেখ করে তাকে কমিটি থেকে বাদ দেয়ার অনুরোধ করেন। বিষয়টি যখন তুঙ্গে ঠিক সে মুহূর্তে বিষয়টি পরিষ্কার করলেন আওয়ামী যুবলীগ ঝিনাইদহ জেলা কমিটির আহবায়ক আশফাক মাহমুদ জন, ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ঝিনাইদহ পৌরসভার সাবেক মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু এবং দলের জেলা কমিটির সভাপতি সংসদ সদস্য আব্দুল হাই। পৃথক সাক্ষাৎকারে তারা জানালেন, ফিরোজ আলী বিশ্বাস বা সংগঠনের কেউ আর বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের ঝিনাইদহ জেলা কমিটির সাথে সম্পৃক্ত নন। তারা নিজেদের হীন-স্বার্থ চরিতার্থ করতে নিজেদের পরিচয় দিলেও তাদের পূর্বের ও বর্তমানের কর্মকাণ্ড আওয়ামী লীগ বা এর অঙ্গসংগঠনের জন্য শুভ নয় বলে জানালেন ওই নেতৃবৃন্দ। উল্লেখ্য: ঝিনাইদহে বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের জেলা কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ (রোববার) কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি হারুন অর রশিদ ও সাধারণ সম্পাদক জিএইচ এম কাজল স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে জেলা বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়।সৈয়দ আল এমরান সভাপতি ও আব্দুল মান্নান রানাকে সাধারণ সম্পাদক করে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট ঝিনাইদহ জেলা পুর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল।