বিশ্ব মেট্রোলজি দিবস উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রপতির বাণী

প্রকাশিত : মে ১৯, ২০২২ , ১১:০১ অপরাহ্ণ

রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ, ফাইল ছবি।

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ শুক্রবার ২০ মে ‘বিশ্ব মেট্রোলজি দিবস-২০২২’ উপলক্ষ্যে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন :
“বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই) কর্তৃক ‘বিশ্ব মেট্রোলজি দিবস’ পালনের উদ্যোগকে আমি স্বাগত জানাই। ওজন ও পরিমাপ বিষয়ক আন্তর্জাতিক সংস্থা International Bureau of Weights and Measures (BIPM) ও International Bureau of Legal Metrology (BIML) কর্তৃক নির্ধারিত দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘Metrology in the Digital Era’, যার বাংলা ভাবানুবাদ ‘ডিজিটাল যুগে পরিমাপ’, বর্তমান প্রেক্ষাপটে সময়োপযোগী হয়েছে বলে আমি মনে করি।
১৮৭৫ সালের ২০ মে ফ্রান্সের প্যারিসে পরিমাপ সম্পর্কিত ‘মিটার কনভেনশন’ স্বাক্ষরিত হয়। দিবসটিকে স্মরণীয় করে রাখতে এবং দৈনন্দিন জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে সঠিক ওজন ও পরিমাপের গুরুত্বের বিষয়ে জনসচেতনতা গড়ে তোলার জন্য প্রতি বছর বিশ্ব মেট্রোলজি দিবস পালিত হয়ে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় এ বছরও বাংলাদেশসহ বিশ্বব্যাপী মেট্রোলজি দিবস পালন করা হচ্ছে। ৪র্থ শিল্প বিপ্লবের যুগে কায়িক পরিশ্রমের পরিবর্তে ডিজিটাল প্রযুক্তির স্বয়ংক্রিয় যন্ত্র ও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় শিল্পকারখানায় উৎপাদিত পণ্যের সঠিক পরিমাপে ডিজিটাল প্রযুক্তির প্রয়োগ এখন সময়ের দাবি। এক্ষেত্রে ওজন ও পরিমাপের আন্তর্জাতিক পদ্ধতির একক ‘The International System of Units (SI)’ এর ডিজিটাল প্রয়োগ ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণ ও সেবা সহজীকরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। এর মাধ্যমে ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে পণ্য উৎপাদন থেকে শুরু করে বাজার ও ভোক্তা পর্যায়ে পৌঁছানো এবং অনুমোদন প্রক্রিয়ার ধাপ কমিয়ে দ্রুত সেবা প্রদান করা সম্ভব হবে। ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে শিল্প কারখানায় উৎপাদন বৃদ্ধির পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বাজারে দেশীয় পণ্যের গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধি পাবে। এছাড়া রপ্তানি বাণিজ্যের সম্প্রসারণের সাথে সাথে দেশের অর্থনীতিকেও সমৃদ্ধ করবে।
পণ্য ও সেবার মান প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন এবং ব্যবসা-বাণিজ্যের সকল ক্ষেত্রে সঠিক পরিমাপ নিশ্চিত করার মাধ্যমে জনগণকে কাঙ্ক্ষিত সেবা প্রদানে জাতীয় মান সংস্থা হিসেবে বিএসটিআই’র গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। জনগণের আস্থা পূরণে বিএসটিআইকে জবাবদিহি নিশ্চিত করার পাশাপাশি আরো দক্ষ ও দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে। আমি আশা করি, আন্তর্জাতিক মান সংস্থাসমূহের সাথে সঙ্গতি রেখে দেশে উৎপাদিত ও বাজারজাতকৃত পণ্যের সঠিক পরিমাপ নিশ্চিত করতে বিএসটিআই নিয়মিত মনিটরিংসহ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। আমি ‘বিশ্ব মেট্রোলজি দিবস’ উপলক্ষ্যে গৃহীত সকল কর্মসূচির সার্বিক সাফল্য কামনা করছি।
জয় বাংলা।
খোদা হাফেজ, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”