২০৪১ সালের স্মার্ট উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনে জয়িতারা অগ্রণী ভূমিকা রাখবে

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ২৯, ২০২২ , ৯:১০ অপরাহ্ণ

মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা, সংগৃহীত চিত্র।

বরিশাল, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, এক সময়ের ক্ষুধার্ত, বুভুক্ষু ও অনুন্নত বাংলাদেশ আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নশীল দেশ। উন্নয়নের সকল সূচকে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। উন্নয়নের এ অগ্রযাত্রায় ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট, উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনে জয়িতারা অগ্রণী ভূমিকা রাখবে। তিনি বলেন, নারীর অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নকে বেগবান করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১১ সালে জয়িতা কার্যক্রমের সূচনা করেন। জয়িতার কার্যক্রম বিভাগ, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে ছড়িয়ে পড়েছে এবং নারীবান্ধব একটি বিপণন নেটওয়ার্ক গড়ে উঠেছে। জয়িতাকে কেন্দ্র করে তৃণমূল পর্যায়ে নারী উদ্যোক্তাদের মাঝে আত্মবিশ্বাস, উৎসাহ ও উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছে।
প্রতিমন্ত্রী বৃহস্পতিবার বরিশাল জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বরিশাল বিভাগের নির্বাচিত পাঁচজন শ্রেষ্ঠ জয়িতাকে সম্মাননা স্মারক, নগদ অর্থ ও সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
বরিশাল বিভাগের সম্মাননা প্রাপ্ত পাঁচজন শ্রেষ্ঠ জয়িতা হলেন-অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জনকারী নারী ক্যাটেগরিতে বরিশাল জেলার জবেদা বেগম, শিক্ষা ও চাকুরি ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী ড. রহিমা নাসরিন, সফল জননী ক্যাটেগরিতে মাজেদা বেগম, নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যোমে জীবন শুরু করা মরিয়ম বেগম এবং সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদানে রেহানা বেগম।
প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরা বলেন, জাতির পিতা সংবিধানে নারী অধিকার ও সমতা নিশ্চিত করেছেন। স্বাধীনতা অর্জনের পর জাতির পিতা নারীর ক্ষমতায়ন ও কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। এরই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশে নারীর উন্নয়নে প্রকল্প, কর্মপরিকল্পনা ও উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছেন। যার ফলে জেন্ডার সমতা অর্জনের মাধ্যমে বাংলাদেশ নারী উন্নয়ন ও নারীর ক্ষমতায়নে বিশ্বে রোল মডেল সৃষ্টি করেছে।
বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার মোঃ আমিন উল আহসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ হাসানুজ্জামান কল্লোল, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ফরিদা পারভীন, বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ সাইফুল ইসলাম ও বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট তালুকদার মোঃ ইউনুস। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় মহিলা সংস্থার নির্বাহী পরিচালক আবেদা আক্তার ও জেলা প্রশাসক বরিশাল মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন।
বরিশাল ডিএনএ ল্যাব ও ওসিসি পরিদর্শন
মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী আজ বরিশাল শের-ই- বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় প্রতিষ্ঠিত ডিএনএ ল্যাব ও ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার পরিদর্শন করেন। পরিদর্শন শেষে তিনি মেডিকেল কলেজের মিলনায়তনে ডিএনএ ল্যাব ও ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও সংশ্লিষ্টদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।
মতবিনিময় সভায় মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ হাসানুজ্জামান কল্লোল, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ফরিদা পারভীন, বিভাগীয় কমিশনার মোঃ আমিন উল আহসান, হাসপাতালের পরিচালক ডা. এইচ এম সাইফুল ইসলাম ও অধ্যক্ষ ডা. মোঃ মনিরুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।