প্রবল বর্ষণে জলমগ্ন ফসলাদি:জলাবদ্ধতার কারণে দুর্বিসহ গ্রামবাসীর জীবন

প্রকাশিত : জুন ২৮, ২০২২ , ৭:৩৭ অপরাহ্ণ

মশাহিদ আহমদ, মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: মৌলভীবাজারে কনকপুর ইউনিয়নের পশ্চিমাঞ্চলের দামিয়া (দামিয়া বাজারের দক্ষিণে দামিয়া আব্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পূর্বে) এলাকায় উঁচু করে বাঁধ নির্মাণ করে পানি নিষ্কাশনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে বাঁধ নির্মাণ করায় গত কয়েক দিনের প্রবল বর্ষণে প্লাবিত হয়ে জলমগ্ন হয়ে বিভিন্ন ফসল-ফসলাদি বিনষ্ট হয়েছে। রোপণকৃত গাছ-গাছালি ও রাস্তাঘাট জলমগ্ন থাকায় অবর্ণনীয় কষ্ট ও জীবন মান দুর্বিসহ হয়ে উঠেছে। ভুক্তভোগী মোঃ আতাউর রহমানসহ স্থানীয় এলাকাবাসী লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। জানা গেছে, দীর্ঘ ৫০ বছর যাবৎ “খার খাল” নামে পরিচিত পশ্চিমাঞ্চলের এলাকার পানি, সারিয়া, নলদাড়িয়া, বচনধর, আব্দা, দামিয়া এলাকার পানি “ফাটা বিল” হয়ে এই খার খালে পতিত হয়। বর্তমানে উক্ত অপরিকল্পিত ভাবে খালের সাথে সংযোগ করে খালের পাশ বৃহদাকার করে মাটি কাটার যন্ত্র দিয়ে অস্বাভাবিক উঁচু করে বাঁধ নির্মাণ করেন মজনু মিয়া ও আব্দুল মুহিতগংরা। এর ফলে পানি নিষ্কাশন দারুণভাবে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। গত কয়েক দিনের প্রবল বর্ষণে প্লাবিত হয়ে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে। বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্টদের অবহিত করেও কোনো সমাধান হয়নি। সর্বশেষ দামিয়া, আব্দা ও বুদ্ধিমন্তপুর এলাকার গণ্যমান্য লোকজনদের নিয়ে বিগত ২২ মে এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয় যে, যেহেতু দীর্ঘ ৫০ বছর যাবৎ পানি নিষ্কাশন হচ্ছে। গ্রামের কোমলমতি ছাত্র ছাত্রীরা স্কুলে যাতায়াত করে। বিকল্প কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না হওয়া পর্যন্ত পানি নিষ্কাশনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা যাবে না মর্মে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। কিন্তু বাঁধ নির্মাণকারী প্রতিবেশী আব্দুল মুহিত সিদ্ধান্তকে অমান্য করেন। এ ব্যাপারে জরুরি ভিত্তিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ‘র হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।