সাবেক রাষ্ট্রদূত মহিউদ্দিন আহমদের মরদেহে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ হতে ফুলেল শ্রদ্ধা

প্রকাশিত : জুন ২১, ২০২২ , ৭:২১ অপরাহ্ণ

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন:মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, সাবেক রাষ্ট্রদূত, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব, কূটনীতিক ও বিশিষ্ট কলামিস্ট মরহুম মহিউদ্দিন আহমদের প্রতি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ হতে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়েছে। মরহুম মহিউদ্দিন আহমদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য তাঁর মরদেহ মঙ্গলবার তাঁর সাবেক কর্মস্থল ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে নিয়ে আসার পর সেখানে মরহুমের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী, বীরবিক্রম, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহরিয়ার আলম, পররাষ্ট্র সচিব (সিনিয়র সচিব) মাসুদ বিন মোমেন, সাবেক ও বর্তমান কূটনীতিকবৃন্দ, বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাবৃন্দ জানাজায় উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, বন্যাদুর্গত এলাকা পরিদর্শনের জন্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সিলেটে যাওয়ায় মরহুম মহিউদ্দিন আহমদের জানাজায় উপস্থিত থাকতে পারেননি। পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে নামাজে জানাজাসহ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ হতে মরহুম মহিউদ্দিন আহমদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়। জানাজা নামাজের পর মরহুম মহিউদ্দিন আহমদের মরদেহে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী, বীরবিক্রম। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ হতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহরিয়ার আলম এবং পররাষ্ট্র সচিব (সিনিয়র সচিব) মাসুদ বিন মোমেন। এছাড়া ফরেন সার্ভিস একাডেমি এবং বাংলাদেশ ফরেন সার্ভিস এসোসিয়েশনের পক্ষ হতেও ফুলেল শ্রদ্ধা জানানো হয়। এসময় মরহুম মহিউদ্দিন আহমদের গৌরবময় জীবনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে স্মৃতিচারণ করেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী, বীরবিক্রম এবং পররাষ্ট্রপ্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহরিয়ার আলম। এরপর মরহুম মহিউদ্দিন আহমদের মরদেহ দাফনের জন্যে তাঁর গ্রামের বাড়ি ফেনীতে নিয়ে যাওয়া হয়। সাবেক রাষ্ট্রদূত মহিউদ্দিন আহমদ গতকাল ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন। তাঁর মৃত্যুতে শোক জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহরিয়ার আলম। একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় ইউরোপের পাকিস্তান দূতাবাসগুলোতে কর্মরত বাঙালি কূটনীতিকদের মধ্যে মহিউদ্দিন আহমেদ প্রথম পক্ষ ত্যাগ করে বাংলাদেশের স্বাধীনতার পক্ষে অবস্থান নেন। ১৯৭১ সালে তিনি লন্ডনের পাকিস্তান হাইকমিশনের দ্বিতীয় সচিবের পদ ছেড়ে দিয়ে যুক্তরাজ্যে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে সার্বক্ষণিক কাজ করেছেন। মহান মুক্তিযুদ্ধে তাঁর অবদান জাতি সবসময় শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে।