সিলেট-সুনামগঞ্জের বন্যার্তদের জন্য সেনাবাহিনীর হাতে ত্রাণ তুলে দিলেন চৌমুহনী পৌর মেয়র

প্রকাশিত : জুন ২৬, ২০২২ , ৪:৩২ অপরাহ্ণ

ইয়াকুব নবী ইমন, নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: গ্লোব ফার্মা গ্রুপ, পৌরসভা ও ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে সিলেট ও সুনামগঞ্জে অসহায় বন্যার্তদের জন্য বিপুল পরিমাণ ত্রাণ সেনাবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করেছেন নোয়াখালীর চৌমুহনী পৌরসভার মেয়র বীর-মুক্তিযোদ্ধা মো: খালেদ সাইফুল্লাহ। শনিবার বিকালে ১৭ পদাতিক ডিভিশন ৩৮ এসটি ব্যাটালিয়নের সিলেট সেনানিবাসের ক্যাপ্টেন আবু নাঈম মোঃ সালমানের কাছ এ ত্রাণ হস্তান্তর করেন তিনি। এ সময় সেনাবাহিনীর পদস্ত কর্মকর্তা, গ্লোব ফার্মা ও চৌমুহনী পৌরসভা কর্মকর্তা ছাড়াও দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। চৌমুহনী পৌর মেয়র বীর-মুক্তিযোদ্ধা মোঃ খালেদ সাইফুল্লাহ বলেন, ভয়াবহ বন্যায় সিলেট- সুনামগঞ্জের অধিকাংশ অঞ্চলের নেটওয়ার্ক ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। ফলে তারা বাইরের কোনো জেলার সাথে সংযোগ করতে পারছে না। রান্না-বান্না বন্ধ, সকল নলকূপ পানিতে তলিয়ে গেছে। শুকনো রুটি, বিস্কুট, গুড় ও চিড়া-মুড়ি খেয়ে বেঁচে আছে আছে অনেক মানুষ। অসহায়ত্ব কাকে বলে তা অত্র অঞ্চলের মাটি ও মানুষ সাম্প্রতিক সময়ে অনুভব করছে। ইতিমধ্যে সেনাবাহিনী, বিমান বাহিনী, নৌবাহিনীসহ নিরাপত্তা বাহিনীগুলো কাজ করছে। তিনি বলেন, আসুন সকল ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষ সব ভেদাভেদ ভুলে বন্যার্তদের রক্ষায় এগিয়ে আসি। এখন প্রয়োজন বন্যার্তদের সর্বাত্মকভাবে সাহায্য করা। সারা দেশের সামর্থ্যবান মানুষজন তাদের পাশে সাহায্যের হাত বাড়াই। বানভাসি মানুষের জন্য প্রয়োজনীয় আশ্রয়স্থল খুলতে হবে এবং খাবার, বিশুদ্ধ পানি ও প্রয়োজনীয় ওষুধ সামগ্রী পাঠিয়ে সাহায্য করতে হবে। ত্রাণ সহায়তার কাজে সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, স্বেচ্ছাসেবক সংগঠন, সামাজিক সংগঠন, যুব-সমাজসহ সকল স্তরের মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে। দেশের বড় বড় কর্পোরেট কোম্পানি, বেসরকারি ব্যাংক, বিভিন্ন পত্রিকাগুলো ত্রাণ তহবিল গঠন করে সাহায্য করতে পারে। আমাদের গ্লোব ফার্মা গ্রুপ কোম্পানি ও চৌমুহনী পৌরসভা, আমার ব্যক্তিগত থেকে ত্রাণ সেনাবাহিনীকে হস্তান্তর করেছি। আমাদের এই সহায়তা অব্যাহত থাকবে। আমি আশা করি দেশের সকল বিত্তবানরা বানভাসিদের সাহায্যে এগিয়ে আসবেন।