জগন্নাথপুর পৌর শহরে যানজটের কারনে জন ভোগান্তি চরমে

প্রকাশিত : জুলাই ২৪, ২০২২ , ৯:০৫ অপরাহ্ণ

ডাঃ নয়ন রায়, জগন্নাথপুর প্রতিনিধি, সুনামগঞ্জ, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর পৌর শহরে যানজটের কারনে জন ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে। সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে চলাচলকারীদের। যানজট প্রকট আকার ধারণ করায় প্রায় সময়ই দুর্ঘটনা-কবলিত হয়ে প্রাণ হারানোসহ পঙ্গুত্ব বরন করছেন অনেকেই। বিশেষ করে সিএনজি, ব্যাটারি চালিত টমটম, অটো রিক্সা, মালবাহী ট্রলি ইত্যাদি যানবাহনের নির্দিষ্ট কোন স্ট্যান্ড না থাকায় পৌর শহরের প্রধান সড়কেই পার্কিং করাসহ সড়কের দুপাশে সারিবদ্ধভাবে গাড়ি দাঁড় করিয়ে রেখে গন্তব্যের দিতে ছেড়ে যাচ্ছে চালকরা। জগন্নাথপুর উপজেলা সদর থেকে রানীগঞ্জ বাজার, শিবগঞ্জ বাজার, চিলাউড়া বাজার, এরালিয়া বাজার, পাটলি, রসুলগঞ্জ, লাউতলা, ভবের বাজার, সৈয়দপুর, পাইলগাঁও, কলকলিয়াসহ বিভিন্ন লাইনে সিএনজি, ব্যাটারি চালিত টমটম, অটোরিকশা, মালবাহী ট্রলি ইত্যাদি নিয়মিত চলাচল করছে। কিন্তু উপজেলা সদরে দু’ একটি লাইনের স্ট্যান্ড থাকলেও চালকরা তাদের খেয়াল খুশিমতো পৌর শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থান পৌরপয়েন্ট, হেলি-প্যাড, চিলাউড়া পয়েন্ট, পশ্চিম বাজারের সুনামগঞ্জ রোড সহ সড়কের পাশে বিভিন্ন স্থানে সিএনজি, ব্যাটারিচালিত টমটম, অটোরিকশা, মালবাহী ট্রলি ইত্যাদি যানবাহন সারিবদ্ধভাবে দাড় করিয়ে রেখে যানজটের সৃষ্টি করছে বলে পথচারীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন। অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, জগন্নাথপুরে ট্রাফিক পুলিশ থাকলেও যানজট নিরসনে তাদের ভূমিকাও প্রশ্নবিদ্ধ। যত্র-তত্র সিএনজি, ব্যাটারি চালিত টমটম, অটোরিকশা, মালবাহী ট্রলি ইত্যাদি দাঁড় করিয়ে রাখার কারনে যানজটসহ দুর্ঘটনা পথচারীদের দুর্ভোগ বাড়ছে ছাড়া কমছে না। সুশীল সমাজ মনে করেন পৌর শহরের পৌর পয়েন্ট ও চিলাউড়া পয়েন্টে স্থায়ীভাবে ট্রাফিক পুলিশ অবস্থান করলে যানজট অনেকটা লাঘব হবে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জগন্নাথপুর ট্রাফিক ইনচার্জ মোঃ জহিরুল ইসলাম বলেন, জগন্নাথপুর রানীগঞ্জ রোডে কয়েকটি ওয়ার্কশপ রয়েছে। এদের সামনে কোন জায়গা না থাকায় গাড়ির মেরামত কাজ রাস্তার পাশে রেখেই করতে হয়। এছাড়াও পার্কিং এর কোনো নির্দিষ্ট জায়গা বা সুবিধা না থাকায় সিএনজি, ব্যাটারি চালিত টমটম, অটোরিকশা যোগে হাটবাজার করতে আসা লোকজনের কারনে কিছুটা যানজটের সৃষ্টি হয়। তবে আমরা যানজট নিরসনে প্রাণপণ চেষ্টা করে যাচ্ছি।