ভাল কাজের জন্য শফিউর রহমান খানকে পাবনার মানুষ চিরদিন স্মরণ রাখবে

প্রকাশিত : আগস্ট ১, ২০২২ , ৪:৪৭ অপরাহ্ণ

স্মরণ-সভায় এক মিনিট দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন করছেন পাবনা প্রেসক্লাব নেতারা।

আবদুল জব্বার, উত্তরাঞ্চল প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ভাল কাজের জন্য সাংবাদিক শফিউর রহমান খানকে পাবনার মানুষ চিরদিন স্মরণ করবে। তিনি পাবনার সাংবাদিকতার মহাকালের যুগ-সন্ধিক্ষণের সাক্ষী। তিনি সাংবাদিকদের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠায় সারা জীবন মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। রবিবার (৩১ জুলাই) রাতে পাবনা প্রেসক্লাবের প্রয়াত সদস্য পাবনা থেকে প্রথম প্রকাশিত সাপ্তাহিক পাবনা বার্তা ও দৈনিক ইছামতির সম্পাদক ও প্রকাশক শফিউর রহমান খানের ২১তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণ সভায় বক্তারা এ সব কথা বলেন। সভা শুরুর আগে মরহুম শফিউর রহমান খানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দাড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক ছিলেন প্রবীণ সাংবাদিক ও পাবনা সংবাদপত্র পরিষদের সভাপতি বীর-মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতীন খান। পাবনা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন পাবনা প্রেসক্লাব সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমান। পাবনা প্রেসক্লাবের সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক ইয়াদ আলী মৃধা পাভেলের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন পাবনা প্রেসক্লাব সম্পাদক সৈকত আফরোজ আসাদ। এ ছাড়া আরও বক্তব্য রাখেন, পাবনা প্রেসক্লাবের প্রবীণ সদস্য ও শফিউর রহমান খানের ঘনিষ্ঠ সহযোগী আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ মান্নান মাষ্টার, দৈনিক বিবৃতির সম্পাদক ইয়াসিন আলী মৃধা রতন, দৈনিক সিনসা সম্পাদক ও শফিউর রহমান খানের জামাতা এসএম মাহবুব আলম। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, পাবনা প্রেসক্লাবের সহ-সম্পাদক আহমেদ হুমায়ুন কবীর তপু, প্রেসক্লাবের সাবেক সম্পাদক আহমেদ উল হক রানা, বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি পাবনা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জহুরুল ইসলাম, পাবনা রির্পোটার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী মাহবুব মোর্শেদ বাবলা, দি ইন্ডিপেনডেন্ট প্রতিনিধি আবুল এহসান এলিচ, দৈনিক জোড়বাংলা নির্বাহী সম্পাদক ফাহিমুল কবির খান শান্ত, ৭১ টিভির প্রতিনিধি মোস্তাফিজুর রহমান রাসেল, গাজী টিভির ইমরোজ খন্দকার বাপ্পী, ডিবিসির প্রতিনিধি মীর্জা পার্থ হাসান, বাসস ও ভোরের কাগজ প্রতিনিধি রফিকুল ইসলাম সুইট, বৈশাখী টিভি প্রতিনিধি মিজান তানজিল, পাবনার খবরের নির্বাহী সম্পাদক মনিরুজ্জামান শিপন, দৈনিক বিপ্লবী সময়ের বার্তা সম্পাদক আব্দুস সালাম প্রমুখ। পরে বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করেন হাফেজ মো. তরিকুল ইসলাম।