কুড়িয়ে পাওয়া টাকা ফেরত দিল ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ থানা পুলিশ

প্রকাশিত : অক্টোবর ১৪, ২০২২ , ১১:১০ অপরাহ্ণ

হেলালী ফেরদৌসী, নিজস্ব প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ পৌরসভায় কুড়িয়ে পাওয়া দুই লাখ টাকা প্রকৃত মালিক লিটন মীরকে ফেরত দিয়েছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১৩ অক্টোবর) সন্ধ্যায় পৌরসভার মুরগীহাটা মোড়ে পুলিশের দুই কনস্টেবল সাইফুল্লাহ ও উত্তম রায় টাকা ভর্তি লাইলনের ব্যাগে কুড়িয়ে পান। পরে রাতে কালিগঞ্জ থানায় টাকার প্রকৃত মালিককে টাকাসহ ব্যাগ ফেরত দেওয়া হয়। জানা গেছে, লাইলনের ব্যাগ পড়ে থাকতে দেখেন টহলরত দুই পুলিশ। তারা কৌতুহলবশত ব্যাগটি হাতে নেন। ব্যাগ খুলতেই দেখেন টাকা। এক-দুই টাকা নয়। এক হাজার করে দুই বান্ডিলে দুই লাখ টাকা। কনস্টেবল সাইফুল্লাহ বলেন, টাকার ব্যাগ হাতে পেয়ে তো আমরা হকচকিয়ে যাই। এ সময় এই ব্যাগের প্রকৃত মালিককে খুঁজে পেতে আমরা দুজনেই ব্যাগ হাতে বেশ কিছুক্ষণ ওই স্থানে অবস্থান করি। এরপর বেশ কিছু সময় অপেক্ষার পর একজন লোককে এদিক ওদিক ঘুরাঘুরি করতে দেখি। এক পর্যায়ে চেউনিয়া গ্রামের আবেদ আলীর ছেলে লিটন মীর (৪৬) আমাদের দিকে বিমর্ষ চেহারা নিয়ে এগিয়ে আসেন এবং ব্যাগটি তার বলে দাবি করেন। তখন আমরা তার কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের সাথে ব্যাগে থাকা টাকা এবং চেকবইয়ের মিল পাই। কালীগঞ্জ থানা পুলিশের আরেক সদস্য উত্তম রায় জানান, ব্যাগটি কুড়িয়ে নিয়ে দেখি তাতে ২ বান্ডিল টাকা ও একটি চেক বই রয়েছে। এ কারণে তাকে সঙ্গে করে আমরা কালিগঞ্জ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) কাছে নিয়ে যাই এবং ঘটনা খুলে বলার পর কুড়িয়ে পাওয়া লাইলনের ব্যাগটি জমা দেই। তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে লিটন মীর ব্যাগের প্রকৃত মালিক হওয়ায় ওসি স্যার ব্যাগটি তাকে বুঝিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেন। হারিয়ে যাওয়া ব্যাগের মালিক লিটন মীর জানান, টাকার ব্যাগটি আমার ছেলের হাতে ছিল, কিভাবে পড়ে গিয়েছে সে বুঝতে পারেনি। পুলিশ আমার হারিয়ে যাওয়া টাকা কুড়িয়ে পাওয়ার পর আমাকে পুনরায় ফেরত দিয়েছে এটা সত্যিই অবিশ্বাস্য। পুলিশের প্রতি আমার ধারণা পাল্টে গেছে। সততার যে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত আজ দুই পুলিশ কনস্টেবল রাখলেন তাতে আমি অভিভূত।