হিজড়াদের প্রতি সমাজের দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে হবে

প্রকাশিত : জানুয়ারি ১৮, ২০২৩ , ৯:০৪ অপরাহ্ণ

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেছেন, হিজড়ারা আমাদেরই স্বজন। হিজড়া হয়ে জন্মগ্রহণ করাতে তাদের নিজেদের কোনো দোষ নেই। প্রকৃতির কারণেই তাদের এ কষ্ট। তারা পরিবার ও সমাজের নিকট থেকে বঞ্চনার শিকার। তাদের ক্রন্দন, ভালোবাসা আমাদের সেভাবে স্পর্শ করে না। বন্ধু’র মতো সংগঠনগুলো তাদের আশ্রয়স্থল। সুখে-দুঃখে তাদের আশা-ভরসার জায়গা। এসব মানবিক সংগঠনগুলো তাদের মাতৃস্নেহে, ভাইয়ের আদরে, বোনের ভালোবাসা দিয়ে কাছে রাখছে। এর মাধ্যমে হিজড়াদের প্রতি সমাজের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তনে তারা কাজ করে যাচ্ছে। হিজড়াদের প্রতি সমাজের দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে হবে। প্রতিমন্ত্রী বুধবার রাজধানীর বাংলাদেশ মহিলা সমিতির নীলিমা ইব্রাহিম মিলনায়তনে ‘বন্ধু সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি’ আয়োজিত তিন দিনব্যাপী (১৮-২০ জানুয়ারি, ২০২৩) আঞ্চলিক আর্ট ও চলচ্চিত্র উৎসব ‘Reincarnate III 2023’ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। প্রধান অতিথি বলেন, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় হিজড়াদের নিয়ে কাজ করতে আগ্রহী। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আলোচক ও পারফর্মার হিসেবে তাদের জন্য ৫-১০ মিনিটের স্লট রাখা যেতে পারে। হিজড়া ও ট্রান্সজেন্ডারদের নিয়ে কাজ করা সংগঠনসমূহের প্রতি আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘হিজড়াদের নিয়ে প্রতি মাসে অনুষ্ঠান আয়োজন করুন। এতে আমি উপস্থিত থাকবো’। প্রতিমন্ত্রী এ সময় সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বন্ধু সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটিকে সহযোগিতা ও পৃষ্ঠপোষকতার আশ্বাস প্রদান করেন। বন্ধু সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটির সভাপতি আনিসুল ইসলাম হিরোর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন অতিরিক্ত মহাপুলিশ পরিদর্শক ও ট্যুরিস্ট পুলিশ প্রধান হাবিবুর রহমান বিপিএম (বার), পিপিএম এবং ঢাকাস্থ যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের ডেপুটি চিফ অভ্ মিশন Helen LaFave ও ইউএনএইডস’র কান্ট্রি ডিরেক্টর ড. সায়মা খান। প্রতিমন্ত্রী পরে বন্ধু সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি আয়োজিত চিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন।