সাব রেজিস্টার দলিল লেখকসহ ১৯ জনের বিরুদ্ধে ঝিনাইদহ আদালতে মামলা

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ২৩, ২০২২ , ৬:০৭ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: শৈলকুপা সাব-রেজিস্টার ইয়াসমিন শিকদার, তিনজন দলিল লেখক বাবুল আক্তার, সেবানুর মজনুসহ, কুষ্টিয়া জেলা রেজিস্টারের কার্যালয়ের প্রধান সহকারী বেষ্টপুর গ্রামের ইব্রাহিম হোসেন বাবুল এবং প্রধান জালিয়াত-কারি হাটফাজিলপুর গ্রামের ভুমিদস্যু ফরিদুল ইসলাম ভুন্ডুলেসহ উনিশ জনের বিরুদ্ধে ঝিনাইদহ বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ১ম আদালতে দলিল জাল-জালিয়াতির ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে। যার নম্বর ৫৫৫/২২,তারিখঃ২২/১২/২০২২ ইং। ধারা: ৪২০/৪৬৩/৪৬৭/৪৬৮/৪৭১/ ৫০৬(২)পেনাল কোড। মামলার বাদী হচ্ছে ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবের প্রচার সম্পাদক ও ঝিনাইদহ সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি শামীমুল ইসলাম শামীম। মামলা সূত্রে জানা গেছে, শৈলকুপা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে ঘুষ লেনদেনকে ঘিরে গড়ে উঠেছে শক্তিশালী জালিয়াত চক্র ও কর্মচারী-দালাল সিন্ডিকেট। ব্যাপক ঘুষ বাণিজ্যের মাধ্যমে অফিসের অনিয়মকে নিয়মে পরিণত করে সাব-রেজিস্ট্রি অফিসকে অপ্রতিরোধ্য স্বর্গরাজ্যে পরিণত করেছে। র্দীঘবছর ধরে জমি রেজিস্ট্রির সকল প্রকার জালিয়াতির কাজসহ দলিল রেজিস্ট্রি জালিয়াতি, ভূয়াপর্চা তৈরি,স্বত্বের থেকে অতিরিক্ত রেজিস্ট্রি, নামপত্তনের খারিজ খতিয়ান জালিয়াতি, দলিলের বালাম বই থেকে পাতা ছেড়া, দলিল প্রতি অতিরিক্ত অর্থ আদায়, টেম্পারিং ও জাল করাসহ কৌশলে প্রতারণা মুলকভাবে দলিল রেজিষ্ট্রি জালিয়াতি করায় ভুক্তভোগী আদালতে মামলা দায়ের করেছেন। সাব-রেজিস্টার, দলিল লেখক, গ্রহীতা, দাতা, সনাক্তকারীদের যোগসাজশে ব্যাপক জাল-জালিয়াতি ঘুষ-বাণিজ্যের মাধ্যমে কর্তৃপক্ষের ক্ষমতার অব্যবহার এবং অপরাধমূলক অসদাচরণ জনিত অপরাধ সংগঠিত করে জমি রেজিষ্ট্রি সম্পন্ন হয়ে থাকে শৈলকুপা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের এই জালিয়াতি সিন্ডিকেট। জালিয়াতি দলিল নং ৬০৪০/২১,দলিল নং-৬৩০৫/১১, দলিল নং-২০৭১/১৪, দলিল নং ১৭৫০/১০,দলিল নং-৬৮৪০/৬৮, দলিল নং ৩০৭১/২০০১, দলিল নং ১৫৯/২০০১,দলিল নং ৫৬৮৬/২০০০, দলিল নং ৩৫৫৭/২০০০, ৫৬৮৫/০৯ এবং দলিল নং ৫৬৮৬/০৯। এছাড়াও ভুমিদস্যু ফরিদুল ইসলাম ভুন্ডুলে দাতা হয়ে তার প্রাপ্ত সমূদয় সম্পত্তি গ্রহীতা রেজাউল ইসলামের নিকট কবলা দলিল নং ১১৩৯/৮১,রেজিষ্ট্রি তারিখ: ২০/০১/১৯৮১ দলিলে বিক্রয় করার পরও উক্ত গ্রহীতা ব্যতিরেকে একই জমি দ্বিতীয় বার জালিয়াতির আশ্রয়ে বিক্রয় করেছে।উক্ত ১১৩৯/৮১ নং দলিলটি যশোর ডি.আর অফিস থেকে বালাম বইয়ের পাতা ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে ব্যাপক ঘুষ-বাণিজ্যের মাধ্যমে। এছাড়াও শৈলকুপা থানায় সাব-রেজিস্টারের বিরুদ্ধে দুনীতি দমন কমিশন মামলা করেন, যাহার মামলা নং ০৬/২৬০, তারিখ ১০/১১/২০১৪।উল্লেখ্য আসামী ফরিদুল ইসলাম ভুন্ডুলের বিরুদ্ধে ঝিনাইদহ বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ১ম আদালতে, দণ্ডবিধি ৪২০/৪৬৭/৪৬৮/৪৭১ ধারায় বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন হাটফাজিলপুর গ্রামের রবিউল ইসলাম জোয়ার্দ্দার সাবেক মেম্বার। যাহার মামলা নং শৈল,সি,আর,১০৩/১২। মামলার বাদী ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবের প্রচার সম্পাদক ও ঝিনাইদহ সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি শামীমুল ইসলাম শামীম বলেন, আসামী-গনের যোগসাজশে জাল-জালিয়াতি প্রস্তুতের মাধ্যমে যে সকল দলিল রেজিষ্ট্রি সম্পন্ন হয়েছে এ জন্যই আমার সম্পত্তির মালিকানা আমার নিকট থেকে ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে। দলিল অংশ ইচ্ছাকৃত ভাবে মিথ্যা দলিল প্রস্তুত(making a false document) করা হয়েছে। যাহার ফলে অবৈধ অধিকার তৈরি হওয়ায় আমার অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে এবং আমি আমার বৈধ অধিকার হইতে বঞ্চিত হয়েছি। বিচারের মাধ্যমে জালিয়াত কারিদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা হলে দলিল জালিয়াতি দূর করা সম্ভব হবে।