স্কুলের শিশুদের নিজ হাতে খাইয়ে প্রশংসায় ভাসছেন কালীগঞ্জ ইউএনও সাদিয়া জেরিন

প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২২ , ৫:৫৫ অপরাহ্ণ

হেলালী ফেরদৌসী, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: মানবিক কর্মকর্তা হিসেবে আগে থেকেই পরিচিতি পেয়েছেন ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া জেরিন। স্কুলের শিশুদের নিজ হাতে খাইয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ সব মহলের প্রশংসায় ভাসছেন ইউএনও। স্বর্ণাক্ষরে ইতিহাসের পাতায় লেখা থাকবে ইউএনও সাদিয়া জেরিন এর নাম। একজন দেশপ্রেমিক, চৌকস, দক্ষ, নিরহংকারী, বিনয়ী ও সদালাপী প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী হিসেবে কালীগঞ্জের ইতিহাসে চির স্মরণীয় বরণীয় হয়ে থাকবেন ইউএনও সাদিয়া জেরিন। ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে অজপাড়া গাঁয়ের এক প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে শতাধিক শিশু শিক্ষার্থীকে দুপুরের রান্না করা খাবার খাওয়ালেন কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া জেরিন। মাতৃস্নেহের এমন ভূমিকায় সরকারি এই কর্মকর্তা এলাকাবাসীর প্রশংসায় ভাসছেন। বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে তিনি উপজেলার জটারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু শিক্ষার্থীদের মাঝে মিড ডে মিলের ওই খাবার পরিবেশন করেন। কালীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ও ফিরোজ মেডিকেল অ্যান্ড টেকনোলজি ফাউন্ডেশনের আয়োজনে ওই অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন কালীগঞ্জ উপজেলার রায়গ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলী হোসেন অপু, উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মাজেদুর রহমান, ফিরোজ মেডিকেল অ্যান্ড টেকনোলজি ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম মোস্তফা ও সহকারী শিক্ষক-বৃন্দসহ স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা। কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া জেরিন জানান, সকালে বাড়ি থেকে খাবার খেয়ে ছোট ছোট শিশু শিক্ষার্থীরা দুপুর-বিকেল পর্যন্ত ক্লাস করে। এদের অনেকেই আবার সাথে করে টিফিন না আনায় ক্ষুধায় কষ্ট পায়। তাই শিশুদের কষ্ট লাঘবের জন্যই মাঝে মাঝে উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ে মিড ডে মিল দুপুরের খাবারের আয়োজন করা হয়। স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সহায়তায় এসব আয়োজন হয়ে থাকে। এই কর্মকর্তা বলেন, শিশুরা আমার সন্তানের মতো। তাদের নিজ হাতে খাবার পরিবেশন করে খাওয়াতে পারায় আমি নিজেও আনন্দিত। বিদ্যালয়েই রান্না করে শিশু শিক্ষার্থীদের খাওয়ানোর বিষয়ে ইউএনও সাদিয়া জেরিন জানান,করোনার কারণে অনেক স্কুলেই শিশু শিক্ষার্থী ঝরে গেছে। তাই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দুপুরের খাবার উৎসব করে শিশু শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়-মুখী করে ঝরে পড়া রোধ করাও সম্ভব। ইউএনও সাদিয়া জেরিন বলেন, সরকারের দায়িত্বপ্রাপ্ত একজন কর্মচারী হিসেবে আমার ওপর অর্পিত দায়িত্ব আমি সর্বদা নিয়ম মেনে পালন করে যাচ্ছি। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ ও আদর্শকে বুকে ধারণ করে কাজ করছি। অন্যায়ের কাছে কখনও মাথা নত করিনি আর করবো না। ইউএনও সাদিয়া জেরিন আরও বলেন, এটাতো আমার কর্তব্য ছিল। আমি শুধু দায়িত্বের জায়গা থেকে সর্বোচ্চ করার চেষ্টা করেছি মাত্র। আগামীতেও এ ধারা অব্যাহত থাকবে।