সিঙ্গাপুরের সাথে এফটিএ স্বাক্ষরের বিষয়ে শীঘ্রই আলোচনা শুরু হবে

প্রকাশিত : নভেম্বর ১৬, ২০২২ , ১০:০১ অপরাহ্ণ

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, সিঙ্গাপুর বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক অংশীদার। বাংলাদেশের বাণিজ্য সম্প্রসারণের জন্য একটি বাণিজ্য সম্ভাবনাময় এলাকা। পণ্য, সেবা ও বিনিয়োগ খাতেও সিঙ্গাপুরের সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক উন্নয়ন করা প্রয়োজন। তিনি বলেন, বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধি করতে উভয় দেশের মধ্যে ‘ফ্রি ট্রেড এগ্রিমেন্ট (এফটিএ)’ স্বাক্ষরের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। আশা করা যায়, শীঘ্রই নেগোসিয়েশন শুরু করা সম্ভব হবে। এছাড়া উভয় দেশের মধ্যে স্বাক্ষরিত সমঝোতা স্মারক বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধিতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে। বুধবার সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ঢাকায় সফররত সিঙ্গাপুরের ট্রান্সপোর্ট, ট্রেড রিলেশনস এবং শিল্পমন্ত্রী S Iswaran এবং বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি উভয় দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শেষে বাণিজ্য সম্প্রসারণ, সেবা ও বিনিয়োগ বৃদ্ধির লক্ষ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের পর সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ের সময় এসব কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, উভয় দেশের মধ্যে জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ কাজ করছে। বাণিজ্য, বিনিয়োগ ও অর্থনৈতিক সহযোগিতা বৃদ্ধির বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। এ সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের দক্ষ জনবল সিঙ্গাপুর যাচ্ছে, সেখানে সুনামের সাথে কাজ করছে, রেমিট্যান্স আসছে। এছাড়া হালাল সার্টিফিকেশন নিয়েও বাংলাদেশ কাজ করছে। এতে করে সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশের পণ্য রপ্তানি বৃদ্ধি পাবে। সিঙ্গাপুরের ট্রেড মিনিস্টার বলেন, উভয় দেশের বাণিজ্য, বিনিয়োগ এবং অর্থনৈতিক সহযোগিতা বৃদ্ধির সুযোগ রয়েছে। সিঙ্গাপুর বাংলাদেশের সাথে কাজ করতে আগ্রহী। বাংলাদেশের কক্সবাজারে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর গড়ে উঠছে। বাণিজ্য ও পর্যটন বৃদ্ধির জন্য এ বিমানবন্দর খুবই সহায়ক হবে। বাংলাদেশ পর্যটনসহ বিভিন্ন বিষয়ে আর্ন্তজাতিক অঙ্গনে প্রচারনা বৃদ্ধি করতে পারে। পর্যটনে বাংলাদেশের বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া আইসিটি খাতেও সিঙ্গাপুর বাংলাদেশের সাথে কাজ করবে। এ সময় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ, ঢাকায় নিযুক্ত সিঙ্গাপুরের হাই-কমিশনারসহ সিঙ্গপুরের ট্রেড মিনিস্টারের নেতৃত্বে আগত প্রতিনিধিদলের সদস্যগণ এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।