সোনাইমুড়ীতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন নিয়ে আওয়ামী লীগের সম্মেলন পণ্ড

প্রকাশিত : অক্টোবর ৯, ২০২২ , ৮:৩৭ অপরাহ্ণ

ইয়াকুব নবী ইমন, নিজস্ব প্রতিনিধি, নোয়াখালী, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে জাতীয় পতাকা উত্তোলনকে কেন্দ্র করে জয়াগ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন পণ্ড হয়ে গেছে। রবিবার দুপুরে জয়াগ মহাবিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় জয়াগ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহবায়ক হাফিজ তানবির, যুগ্ম আহবায়ক আব্দুর রহিম, ১নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি ইসমাঈল হোসেন বাবু, জয়াগ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ সভাপতি রাব্বি ও ছাত্রলীগ নেতা মাসুদসহ অন্তত ১০ জন আহত। জানা যায়, দীর্ঘ নয় বছর পর রোববার সোনাইমুড়ী উপজেলার জয়াগ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের আয়োজন করা হয় জয়াগ মহাবিদ্যালয় প্রাঙ্গণে । সকাল ১০টার দিকে সোনাইমুড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমিনুল ইসলাম বাকের ও সাধারণ সম্পাদক আ.ফ.ম বাবুল বাবু জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে সম্মেলনের সূচনা করেন। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সম্মেলন-স্থলে আসেন নোয়াখালী-১ (চাটখিল-সোনাইমুড়ী) আসনের সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহীম ও প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী জাহাঙ্গীর আলম, সোনাইমুড়ী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খন্দকার রুহুল আমিন, সোনাইমুড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রধান সমন্বয়ক ও জেলা আওয়ামী লীগ নেতা ফুয়াদ হোসেন। এর পর তারা সম্মেলন কক্ষে প্রবেশ না করে জয়াগ মহাবিদ্যালয় শিক্ষক মিলনায়তনে অবস্থান নেয়। এক পর্যায়ে শিক্ষক মিলনায়তনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমিনুল ইসলাম বাকের ও সাধারণ সম্পাদক আফম বাবুল বাবু অনুসারীরা প্রবেশ করে অতিথিদের সম্মেলনে যোগদান করার আহবায়ক জানান। ওই সময় সম্মেলনে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথি আসার আগে পতাকা উত্তোলন করার কারণ জানতে চাইলে এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। শেষে দুই পক্ষের লোকজন শিক্ষক মিলনায়তন থেকে বের হয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে অন্তত ১০ জন আহত হয়। এ সময় সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়া সরকার দলীয় নেতাকর্মীরা পুলিশ ও গণমাধ্যম কর্মীদের সামনেই ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। জানতে চাইলে নোয়াখালী-১ আসনের সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহিম বলেন, জাতীয় পতাকা উত্তোলন নিয়ে সম্মেলন স্থগিত হয়নি। সম্মেলন উদ্বোধন করে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি। সে হিসেবে তিনি সম্মেলন উদ্বোধন করেছেন। এটাতে অসুবিধা নেই। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কোথাও বাধা নেই। অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, অতিথিরা যাওয়ার আগেই উপজেলা সভাপতি ও সম্পাদক পতাকা উত্তোলন করায় উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে অতিথিরা চলে আসতে চাইলে একদল দুর্বৃত্ত ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে সোনাইমুড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মমিনুল ইসলাম বাকের বলেন, ব্যালটের সিরিয়ালে সমস্যা থাকায় আমাদের সম্মেলন আমরা নিজেরাই স্থগিত করেছি। জেলা নেতাদের সাথে কথা বলে পরে সম্মেলন করা হবে।
অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, জাতীয় পতাকা উত্তোলন করার ক্ষমতা হলো আমার। ইব্রাহীম সাব, জাহাঙ্গীর সাব, রুহুল আমিন সাব কিসের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করবে। জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে সংশ্লিষ্ট জেলা, থানা, ইউনিয়ন সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক। সোনাইমুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হারুন অর রশীদ বলেন, এক পক্ষ আসতে দেরি হওয়ায় আরেক পক্ষ পতাকা তুলতে চাইলে এটা নিয়ে মত বিরোধ হয়। পরে দুই পক্ষই চলে গেলে সম্মেলন স্থগিত হয়ে যায়।