ঝুঁকিপূর্ণ বেগমগঞ্জ স্টেডিয়াম ভবন: মাঠ এখন গোচারণ ভূমি

প্রকাশিত : জুন ১৬, ২০২২ , ৩:৪৭ অপরাহ্ণ

ইয়াকুব নবী ইমন, নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: দীর্ঘদিন সংস্কার না করায় ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার একমাত্র স্টেডিয়াম ভবনটি। কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় গোচারণ ভূমিতে পরিণত হয়েছে এই খেলার মাঠ । দীর্ঘ ১০ বছর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার কমিটি না হওয়ায় বছরের পর বছর ক্রীড়াঙ্গনে বিরাজ করছে স্থবিরতা। স্টেডিয়ামের অভ্যন্তরে দিন রাত চলে বখাটেপনা, টাস-জুয়ার আসর ও অসামাজিক কার্যকলাপ। নেই খেলাধুলার পরিবেশ। খেলাধুলা না থাকায় শিশু-কিশোররা জড়িয়ে পড়ছে নেশাসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে, তৈরি হচ্ছেনা নতুন খেলোয়াড়। সূত্র জানায়, বেগমগঞ্জের শিশু-কিশোর খেলাধুলার একমাত্র স্থান বেগমগঞ্জ স্টেডিয়াম। যা বেশির ভাগ সময় থাকে তালা বদ্ধ। স্টেডিয়াম ভবনটি নির্মাণের পর থেকে আর সংস্কার না করায় ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। ভবনের অভ্যন্তরে বিরাজ করছে নোংরা পরিবেশ, খেলোয়াড়দের জন্য নির্মিত ওয়াস রুম, বিশ্রাম রুম ও টয়লেটগুলো ব্যবহারের অনুপযোগী। ভবনটি ভেঙ্গে পড়ে যে কোন সময় ঘটতে পারে দুর্ঘটনা। মাঠ ভর্তি ঘাসের কারণে পুরো মাঠ পরিণত হয়েছে গোচারণ ভূমিতে। দীর্ঘদিন কমিটি না থাকায় কোন টুর্নামেন্টও হচ্ছেনা। স্থানীয় শিশু-কিশোররা নিজ উদ্যোগে খেলাধুলার জন্য স্টেডিয়ামে আসলেও পরিবেশ না থাকায় তারা খেলাধুলা করতে পারেনা। দ্রæত স্টেডিয়ামটি মেরামত ও খেলার পরিবেশ সৃষ্টির দাবী জানিয়েছেন স্থানীয় খেলোয়াড়, অভিভাবক ও সচেতন মহল। উপজেলার ক্রীড়া সংগঠক আনোয়ার হোসেন জন্টু বলেন, যুব সমাজকে মাদকের ভয়াবহতা থেকে রক্ষা করতে খেলাধুলার বিকল্প নেই। আমাদের নেতারা, সরকারী কর্মকর্তারা শুধু মুখেই বলেন মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন, কিন্তু মাদক থেকে দুরে রাখতে কিশোর-তরুণদের খেলাধুলার পরিবেশ দিতে হবে। উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সদস্য সচিব চৌমুহনী পৌর মেয়র খালেদ সাইফুল্যাহ জানান, আমি পদাধিকার বলে সদস্য সচিব হলেও বেগমগঞ্জ স্টেডিয়াম কে চালায় তা আমার জানা নেই। আমি মেয়র হয়েছি পর্যন্ত কেউ এখনে এ বিষয়ে আমার সাথে যোগাযোগ করেনি। আমার কাছে সহযোগিতা চাইলে যে কোন প্রয়োজনে সহযোগীটার জন্য আমি প্রস্তুত রয়েছি। আর আমিও খোঁজখবর নেবো, স্টেডিয়ামের পরিবেশ ফিরিয়ে এনে কিশোর তরুণদের খেলাধুলায় মনোযোগী করতে পারলে আমাদের সমাজের জন্য অনেক উপকার হবে। তারা মাদক থেকে ফিরে মানব সেবায় উদ্বুদ্ধ হবে। উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার সামছুন নাহার জানান, আমরা বিষয়টি ইতিমধ্যে জেনেছি। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে স্টেডিয়াম সংস্কারসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
উল্লেখ্য, বেগমগঞ্জ-বাসীর খেলাধুলার সুবিধার্থে ২০০৬ সালে তৎকালীন সরকার উপজেলার গনিপুরে স্টেডিয়ামটি স্থাপন করে।