প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নানা সুযোগ সুবিধা প্রদান করেছে

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ১১, ২০২২ , ৯:২৬ অপরাহ্ণ

আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ্, সংগৃহীত চিত্র।

বরিশাল, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন ও পরিবীক্ষণ কমিটির আহবায়ক (মন্ত্রী পদমর্যাদা) আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ্ বলেছেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কালো রাতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস বিকৃত করা হয়। সেসময় দেশের মুক্তিযোদ্ধারা তাদের পরিচয় দিতে ভয় পেত। তিনি বলেন, খুনি চক্র শুধু বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশকেই কলুষিত করে ক্ষান্ত হয়নি, তারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের বিচার বন্ধ করে খুনিদের চাকুরি দিয়ে পুনর্বাসিত করেছে। তিনি বলেন, একমাত্র বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার গঠন করার পরই মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতা প্রদান, ফ্রি চিকিৎসা সুবিধা, গৃহহীনদের গৃহ প্রদান, সরকারি চাকুরিতে কোটা প্রদান, জমির খাজনা মওকুফ, ডিজিটাল সনদ ও স্মার্ট আইডি কার্ড প্রদান সহ নানা সুযোগ-সুবিধা প্রদান করেছে। আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ্ রবিবার বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা ও প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের মাঝে ডিজিটাল সনদপত্র ও স্মার্ট আইডি কার্ড বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন। উজিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারিয়া তানজিন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য শাহে আলম তালুকদার, সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা রুবিনা মীরা, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোঃ আনিসুর রহমান, কৃষকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও এফবিসিসিআই এর পরিচালক সেরনিয়াবাত মঈন উদ্দিন আব্দুল্লাহ, বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য সেরনিয়াবাত আশিক আব্দুল্লাহ, উজিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ সিকদার বাচ্চু প্রমুখ। আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ, দেশের চলমান উন্নয়ন-অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রাখতে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে পুনরায় ভোট দিয়ে নির্বাচিত করার জন্য উপস্থিত সকলের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের ৪৩৭জন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও ৪শত ২৫জন শহিদ ও মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধার স্বজন ও প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের সদস্যের হাতে ডিজিটাল সনদ ও স্মার্ট আইডি কার্ড বিতরণ করেন।